সংবাদ

ইসলাম বিশ্বের সবচেয়ে জনপ্রিয় ধর্ম

যুক্তরাষ্ট্রের পিউ রিসার্চ সেন্টার (পিআরসি) বলেছে, বিশ্বে ইসলাম সবচেয়ে জনপ্রিয় ধর্ম হয়ে উঠছে। ১৯৯টি দেশের মধ্যে ২০১৫ সালের তথ্য বিশ্লেষণ করে গত ৪ঠা অক্টোবর মঙ্গলবার প্রকাশিত যুক্তরাষ্ট্র-ভিত্তিক গবেষণা প্রতিষ্ঠান ‘পিউ রিসার্চ সেন্টার’-এর ধর্মীয় রূপরেখা বিষয়ক এক গবেষণায় এ কথা বলা হয়েছে। এর আগে পিআরসি-র গবেষণায় ইসলামকে বিশ্বের সবচেয়ে দ্রুত বিস্তার লাভকারী ধর্ম হিসাবে আখ্যায়িত করা হয়।

পিআরসি-র গবেষণায় বলা হয়, আগামী ২০৭০ সালের পর বিশ্বে ইসলাম হবে সবচেয়ে জনপ্রিয় ধর্ম। এর আগে বিশ্বে ২০৫০ সাল নাগাদ মুসলিম জনসংখ্যা হবে খ্রিস্টানদের প্রায় সমান। ইসলাম হবে এ দুনিয়ার সবচেয়ে দ্রুত বর্ধনশীল ধর্মবিশ্বাস। প্রাপ্ত তথ্যের ভিত্তিতে করা এক হিসাবে (প্রজেকশান) এমনটিই দেখা গেছে। সারা বিশ্বের জন্মহার, জনসংখ্যা বৃদ্ধির ধারা এবং ধর্মান্তরের পরিসংখ্যানের তথ্যের ভিত্তিতে এ সমীক্ষা করা হয়।

সমীক্ষার তথ্যে দেখা যায়, ইসলাম ধর্মে বিশ্বাসীদের সংখ্যা ২০৫০ সাল নাগাদ গিয়ে দাঁড়াবে ২৭৬ কোটিতে। ঐ সময় মুসলমানরা বিশ্বের মোট জনসংখ্যার এক-তৃতীয়াংশ হবে। ২০৫০ সালে বিশ্বের মোট জনসংখ্যা ৯শ’ কোটি হবে বলে ধারণা করা হচ্ছে। মুসলমানদের সংখ্যা হবে ২৮০ কোটি যা মোট জনসংখ্যার ৩০ শতাংশ এবং খ্রিস্টানদের সংখ্যা ২৯০ কোটি (মোট জনসংখ্যার ৩১ শতাংশ) গিয়ে দাঁড়াবে। যদি এই ধারা চলতে থাকে তাহ’লে ২০৭০ সালের পর বিশ্বে ইসলামই বেশী জনপ্রিয় ধর্ম হবে। গবেষণায় বলা হয়, সামনের দিনগুলোতে যেমন একদিকে বাড়বে ধর্মহীন মানুষের সংখ্যা, ঠিক তেমিন বিপুল পরিমাণ মানুষ ধর্ম বিশ্বাস, বিশেষ করে ইসলামে ধর্মান্তরিত হবে।

পিআরসি বলে, বিশ্বের ১৭৫টি দেশের ২ হাযার ৫০০ জরিপ থেকে সংগ্রহ করা তথ্যের ভিত্তিতে এই বিশ্লেষণ করেছে পিউ। তবে তারা এটাও বলেছে যে, প্রাকৃতিক দুর্যোগ, বড় ধরনের সামাজিক, অর্থনৈতিক বা রাজনৈতিক পরিবর্তন, সশস্ত্র যুদ্ধ, ইত্যাদি বিষয়গুলো এই স্বাভাবিক প্রবণতাকে ব্যাহতও করতে পারে। অন্যথায় ২০৫০ সাল নাগাদ বিশ্বের ধর্মভিত্তিক মানচিত্র হবে এরকমই।

[আমেরিকা থেকে প্রতি বছর এ ধরনের রিপোর্ট বের করার পিছনে তাদের কোন রাজনৈতিক দূরভিসন্ধি আছে কি-না জানা প্রয়োজন। বিশ্বব্যাপী জঙ্গীবাদের প্রসারে তাদের ষড়যন্ত্র আজ প্রমাণিত। অতএব এরূপ রিপোর্টে আত্মতুষ্টি লাভের কোন অবকাশ নেই। কেননা ইসলাম বিশ্বজয়ী ধর্ম হবে এবং তা প্রত্যেক মাটির ও বস্তিঘরে প্রবেশ করবে, এটা তো আমাদের প্রিয় নবী (ছাঃ)-এর ভবিষ্যদ্বাণী (মিশকাত হা/৪২)। এর জন্য কোন জরিপের প্রয়োজন নেই ]

আরও পোস্ট

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

Back to top button
Close