প্রশ্নোত্তর-ফাতাওয়াসিয়াম-রোযা

রমযানের কাযা রোযার আগে শাওয়ালের ছয় রোযা

প্রশ্ন: রমযানের কাযা রোযার আগে শাওয়ালের ছয় রোযা শুরু করা যাবে কি?

উত্তর: সহীহ হাদীস থেকে বোঝা যায় যে, শাওয়ালের ছয় রোযা মূলত রমযানের রোযা পূর্ণ করার সাথে সম্পৃক্ত। তাই রমযানের রোযার কাযার আগে শাওয়ালের ছয় রোযা শুরু করা যাবে না। কেননা রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলছেন:

‘مَنْ صَامَ رَمَضَانَ ثُمَّ أَتْبَعَهُ سِتًّا مِنْ شَوَّالٍ كَانَ كَصِيَامِ الدَّهْرِ’

“যে ব্যক্তি রমযান মাসে রোযা রাখল অতঃপর এ রোযার পর শাওয়াল মাসে ছয়টি রোযা রাখল সে যেন সারা বছরই রোযা রাখল”। {সহীহ মুসলিম, হাদীস নং ১১৬৪}।

হাদিসটি প্রমাণ করছে যে, আগে রমযানের রোযা পূর্ণ করতে হবে। সেটা তার সুনির্দিষ্ট সময় রমযানে আদায় হিসেবে হোক অথবা শাওয়াল মাসে কাযা পালন হিসেবে হোক। অর্থাৎ রমযানের সকল রোযা পূর্ণ করার পরই শাওয়ালের ছয় রোযা রাখা হলে হাদীসে বর্ণিত সওয়াব পাওয়া যাবে। কারণ যে ব্যক্তির উপর রমযানের কাযা রোযা বাকী আছে সেতো পূর্ণ রমযানের রোযা রাখেনি। বরং কিছুদিন রোযা রেখেছে।

তবে কোন নারী যদি নিফাসগ্রস্ত হন এবং তিনি গোটা রমযানে রোযা রাখতে না পারার কারণে, শাওয়াল মাসে রমযানের কাযা রোযা পালন শুরু করেন, ও কাযা রোযা শেষ করতে করতে জিলক্বদ মাস শুরু হয়ে যায়, তাহলে তিনি জিলক্বদ মাসে ছয় রোযা রাখতে পারবেন। এতে তিনি তিনি শাওয়াল মাসের ছয় রোযা রাখার সওয়াব পাবেন। কেননা তিনি বাধ্য হয়েই এই বিলম্ব করেছেন।

দেখুন: (ফাতাওয়া সমগ্র ১৯/২০, ও ইসলামকিউর ফাতাওয়া নং- ৪০৮২ ও ৭৮৬৩)।
—————————————————————————————————–
শায়খ মুফতি যাকারিয়্যা মাহমূদ মাদানী
বিএ (অনার্স), এমএ, এমফিল: মদীনা বিশ্ববিদ্যালয়, সৌদী আরব।
আলোচক ও অনুবাদক: আল কুরআন মিউজিয়াম, মসজিদে নববী, মদীনা মুনাওয়ারা, সৌদী আরব।

আরও পোস্ট

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

Back to top button
Close