মুফতি যাকারিয়্যা মাহমূদ-এর কলাম

কেউ কখনো নিখুঁত ও পরিপূর্ণ হয় না

খুঁত আর নিখুঁত দুটি বিপরীত শব্দ। খুঁত আছে বলেই পৃথিবীতে নিখুঁত আছে। নিখুঁতের মূল্য আছে। জগতে খুঁত না থাকলে নিখুঁতের সৃষ্টি হতো না। অন্য কথায় খুতের অস্তিত্বহীনতায় নিখুঁত তার পরিচয় হারিয়ে হতো বিপন্ন। পৃথিবীর আদি মানুষ থেকেই খুঁত বা ভুলের সূচনা। নিখুঁত নির্ভুলের পাশাপাশি যুগে যুগে খুঁত ছিল, ভুল ছিল, আছে এবং থাকবে।

মানুষের পক্ষে কখনো শতভাগ নিখুঁত নিখাদ নির্ভুল হওয়া সম্ভব নয়। রঙ ও বর্ণে, অবয়বে, আকারে, আকৃতিতে, গঠনে, প্রকৃতিতে, অভ্যাসে, স্বভাবে চরিত্রে, চিন্তায় চেতনায়, মেধায় মননে, কর্মে ও যোগ্যতায়, নরে কিংবা ঘরে নারীতে কিংবা বাড়ীতে কোথায় নেই খুঁত? কোথায় কে নিখুঁত? কোথায় নেই ভুল? কোথায় কে নির্ভুল? কোন সে সৌন্দর্যের রানী? সে কোন নিখুঁত নর? কোন সে মানুষ নিখুঁত সৌন্দর্যের অনুপম আঁকর?

দুনিয়ার কোনো মানুষই পরিপূর্ণ নয়। নির্ভুল নিখুঁত নয়। সবদিক থেকে সুখী নয়। কোথাও না কোথাও কিছু না কিছু অসঙ্গতি সবারই আছে। কেউ বলে কেউ বলে না। কেউ বোঝে কেউ এটা বোঝে না। সবাই যোগ্যতা, অভিজ্ঞতা ও কর্মদক্ষতায় সমান নয়। বৈশিষ্ট্যে একজন আরেক জনের মতো নয়। সবার মধ্যে সবসময় সমান হারে সবগুণ থাকাটাও জরুরী নয়। প্রতিটা মানুষই ভিন্ন ভিন্ন সত্ত্বায় তার নিজের মতো। নিজস্ব চিন্তা চেতনায়, কর্মে সৃষ্টি ও সৃজনশীলতায় ভিন্ন ভাস্বর। সবাই সবকিছু পারে না। একজন খুব সুন্দর করে গুছিয়ে কথা বলতে পারে, কিন্তু লিখতে পারে না। আরেক জন হয়তো সুন্দর করে বলতে পারে না কিন্তু চমৎকারভাবে লিখতে পারে। কেউ কাজে ভালো, কেউ সাজে ভালো। কেউ রাঁধে ভালো কেউ বাঁধে ভালো। রাঁধেও ভালো বাঁধেও ভালো এমনটা কম।

পৃথিবীতে নিষ্পাপ নিরপরাধ নিষ্কলুষ নিষ্কলঙ্ক নিখুঁত কোনো মানুষ নেই। মানুষ ভুল করবে এটাই স্বাভাবিক। তবে ভুলের উপর স্থির থাকাটা অস্বাভাবিক। চরম অহংকারী ও দাম্ভিক লোকেরাই কেবল জানার পরেও ভুলের উপর স্থির থাকে। সচেতন পরিচ্ছন্ন অন্তরের নিরহংকার সফেদ মানুষ কখনো ভুল হয়ে গেলে পরক্ষণে তা ঠিক করে নেয়। গতিপথে ভুল করে ফেললে সম্বিত ফিরে পেয়ে আবার গন্তব্য পরিবর্তন করে নতুনভাবে চলতে শিখে। ভুল থেকে শিক্ষা নেয়, সংশোধনের দীক্ষা নেয়। নবচেতনায় নবোদ্দীপনায় ঘুরে দাড়ায়। এভাবেই ভুল থেকে শিখতে শিখতেই একজন মানুষ এক সময় প্রাজ্ঞতায় পরিপূর্ণ আর বিজ্ঞতায় প্রস্ফুটিত হয়। তাই এ কথা বলা বোধয় অত্যুক্তি হবে না যে, খুঁতই নিখুঁতকে করেছে মহিমান্বিত, করেছে সমুজ্জ্বল সমুন্নত।

তাই আপনার ভুল হতে পারে। কাজের সমালোচনা ও নিন্দা হতে পারে। অফিসের বস কিংবা সহকর্মীরা আপনাকে তিরস্কার করতে পারে। একেবারে কাছের মানুষটিও হয়তো আপনাকে সতর্ক করতে পারে। এটা নিয়ে মন খারাপের কিছু নেই। পৃথিবীতে ভালো কাজের যেমন প্রশংসা হয় তেমনি মন্দ কাজেরও নিন্দা হয়। অনাকাঙ্ক্ষিত এই আবহ থেকে উত্তরণের জন্য আপনি আপনার ভুলগুলোর একটি তালিকা তৈরি করে নিন। ভুলের জায়গাগুলো মার্ক করে নিন। সমালোচনার কারণগুলো খুঁজে বের করুন। ভবিষ্যতের জন্য সতর্ক থাকুন। সমালোচক ও তিরস্কারকদের তির্যক মন্তব্যকে নেগেটিভ ভাবে নিবেন না। যে ভুল ধরিয়ে দেয় তাকে শত্রু নয় কল্যাণকামী ভাবুন। কারণ আজকের তিরস্কার ও সমালোচনাই আপনাকে আগামীর নির্ভুল ও পূর্ণতার দিকে এগিয়ে যেতে সাহায্য করবে ইন শা আল্লাহ্‌।

লেখক, মুফতি যাকারিয়্যা মাহমূদ মাদানী
পরিচালক: ভয়েস অব ইসলাম
সম্পাদক ও প্রকাশক: ডেইলি মাই নিউজ
প্রিন্সিপাল: মাদরাসাতুল মাদীনাহ লিল বানাত, মিরপুর-১, ঢাকা
jakariyamahmud@gmail.com

আরও পোস্ট

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

Back to top button
Close