কোনো মুসলমানকে কাফের বলা যাবে না

অকাট্য প্রমাণ ছাড়া কোনো মুসলমানকে কাফের বলা হারাম।

আবূ হুরাইরাহ (রা.) হতে বর্ণিত। রাসূলুল্লাহ (সা.) বলেছেন:

عَنْ أَبِي هُرَيْرَةَ ـ رضى الله عنه ـ أَنَّ رَسُولَ اللَّهِ صلى الله عليه وسلم قَالَ ‏ “‏ إِذَا قَالَ الرَّجُلُ لأَخِيهِ يَا كَافِرُ فَقَدْ بَاءَ بِهِ أَحَدُهُمَا

কোনো ব্যক্তি যদি (অন্যায়ভাবে) তার মুসলমান ভাইকে কাফের বলে, নিঃসন্দেহে তাদের যেকোনো একজনের প্রতি কুফরি আপতিত হবে। তার কথায় বাস্তবতা না থাকলে কুফরি তার নিজের দিকেই বর্তাবে।( )
এই হাদিস থেকে স্পষ্টভাবে জানা যায়, অকাট্য প্রমাণ ছাড়া কোনো মুসলমানকে কাফের বলা হারাম। এমনকি অজ্ঞতাবশত কেউ শরিয়তের কোনো বিধান অস্বীকার বা বিরোধিতা করলেও তার বিষয়টি ক্ষমাসুন্দর দৃষ্টিতে দেখতে হবে।( )

আকীদা তাহাবিয়ায় সুস্পষ্টভাবে বলা হয়েছে:

ولا نكفر أحدا من أهل البيت بذنب ما لم يستحله

“আমরা কা‘বাকে কিবলা স্বীকারকারী কোনো মুসলিমকে তার অপরাধের কারণে কাফির আখ্যায়িত করি না, যতক্ষণ না সে অপরাধকে বৈধ মনে করে।” (শারহুল আকীদা আত তাহাবিয়া, শায়খ আবদুল্লাহ জিবরীন, ৩৮/২, শামেলা, শারহু লুমআতিল ইতিকাদ, ১৭/৬, শামেলা, কিতাব উসূলুদ্দীন, পৃ: ৩০৪, দারুল বাশাইর আল ইসলামিয়্যাহ, প্রথম সংস্করণ, ১৯৯৮)

লেখক: মুফতি যাকারিয়্যা মাহমূদ মাদানী
বি. এ অনার্স, এম. এ, এমফিল: মদীনা বিশ্ববিদ্যালয়, সৌদি আরব
পরিচালক: ভয়েস অব ইসলাম
প্রিন্সিপাল মাদরাসাতুল মাদীনাহ লিল বানাত, মিরপুর-১, ঢাকা
প্রধান গবেষক: আস-সুন্নাহ ফাউন্ডেশন
সম্পাদক ও প্রকাশক: ডেইলি মাই নিউজ।

এ সম্পর্কিত আরও পোস্ট

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

Back to top button
Close